কি ভাবে শুরু করবেন

বাজার পরিক্রমা

আপনি নতুন একটি ডিএসএলআর ক্যামেরা কিনেছেন। আগে হয়তো মোবাইল ফোনের ক্যামেরা ব্যবহার করেছেন কিংবা পয়েন্ট এন্ড শুট ক্যামেরা। ফেসবুকে ছবি আপলোড দিয়ে শ’য়ে শ’য়ে  লাইক / কমেন্ট পেয়েছেন। কিন্তু এই ডিএসএলআর হাতে নিয়ে ছবি তোলার নিজের কাছেই যা তা মনে জচ্ছে। ফেসবুকে আপলোড করার সাহসই পাচ্ছেন না। কেন এমন হলো ? ঘটনা তেমন কিছুই না। আগে ছবি তুলতো ক্যামেরা নামের যন্ত্র, আপনি কেবল কম্পোজিশন / এঙ্গেল / ফ্রেমিং ঠিক করে শাটার বাটন টিপতেন। আর এখন সবকিছু নিজের মতো করতে গিয়ে গুবলেট হয়ে যাচ্ছে। তবে চিন্তার কারণ নেই আপনি একটু সময় দিলেই ক্যামেরার টেকনিক্যাল বিষয়গুলো সহজেই আয়ত্বে আনতে পারবেন।

আপনি যদি মোবাইল ফোন ক্যামেরা বা পয়েন্ট এন্ড শুট ক্যামেরা দিয়ে অটো মোডে ছবি তুলে অভ্যস্ত হয়ে থাকেন তবে কখনই ডিএসএলআর ক্যামেরা হাতে নিয়ে ম্যানুয়াল মোডে ছবি তুলতে যাবেন না। ডিএসএলআর ক্যামেরাতেও অটো মোড আছে। নিশ্চিন্তে কারো সমালোচনার তোয়াক্কা না করে অটো মোডে ছবি তুলতে থাকুন। বিশেষ করে কোন পারিবারিক অনুষ্ঠান কিংবা বন্ধুদের আড্ডায়। কারণ এইসব অনুষ্ঠান হয়ে গেলে আর দ্বিতীয়বার ছবি তোলার সূযোগ পাবেন না। স্মৃতি হিসেবে একটি ছবি অনেক কিছু। ডিএসএলআর ক্যামেরায় অটোমোডে ছবি তুলতে দেখলে অনেকেই ঠাট্টা করবে, টিটকারী দিবে। সোজা উপেক্ষা করে নিজের কাজ করে যান। অন্য সময় ক্যামেরা নিয়ে নিয়মিত প্র্যাকটিস করুন, ফলাফল পর্যবেক্ষণ করুন।

ক্যামেরার বক্সে খেয়াল করুন আপনাকে একটি ম্যানুয়াল দেয়া হয়েছে। একেবারে বিগিনার লেভেল এর ক্যামেরা হলে সেটি হয়তো পিডিএফ হিসেবে সিডি’তে আছে। আর একটু হায়ার লেভেল এর ক্যামেরা হলে সেটি ছাপানো বই হিসেবেই পাবেন। যে ভাবেই পেয়ে থাকুন না কেন, বাক্সবন্দী করে না রেখে মাঝে মধ্যে পড়ে দেখুন। আমি জানি এই বই পড়ার মতো বোরিং কাজ দুনিয়াতে দ্বিতীয়টি নেই। তারপরও আমি বলবো বই এর প্রথম দিকের কয়েকটি পাতা অবশ্যই পড়বেন। বিশেষ করে যে অংশে ক্যামেরার বিভিন্ন অংশে সংখ্যা দিয়ে মার্ক করা আছে, নিচে সেই সংখ্যা দিয়ে অংশগুলির নাম লেখা আছে। এই সংখ্যা / নামের সাথে মিলিয়ে আপনার ক্যামেরার অংশ গুলো আগে চিনে ফেলুন। বিশেষ করে বাটন গুলো। কোন বাটনের কি কাজ সেগুলো এই ম্যানুয়াল বই এ আছে। আপনার যদি পিডিএফ কপি হয় তবে ক্যামেরার বিভিন্ন অংশের পরিচিতি (ছবি সহ) অংশটি প্রিন্ট করে ফেলুন। নিজের ক্যামেরাটি চেনার ব্যাপারে এই ম্যানুয়াল আপনাকে যথেষ্ঠ সাহায্য করবে।  প্রয়োজনের সময় কোন বাটন কি কাজ করবে তার প্রাথমিক ধারণা এখান থেকেই নিতে পারবেন।

তাহলে আর দেরী কেন !!! পড়া শুরু করুন, ক্যামেরার সাথে মিলিয়ে দেখুন। অপেক্ষা করুন পরবর্তী ব্লগ পোষ্টের জন্য।

Facebook Comments